শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখা অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার শৈলকুপায় বামগণতান্ত্রিক জোটের সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস প্রতিরোধ দিবস পালিত সব শঙ্কা উড়িয়ে বিশ্বকাপের মূলপর্বে বাংলাদেশ সাঈব ঈমাম চৌধূরী ৪ নং সলিমুললাহ রোড ইউনিট আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনার শীর্ষে কোরআন অবমাননা কারা করতে পারে? যাদের উপর নাজিল হয়েছে ধর্ম কি মানুষের জন্য ? না-কি মানুষ ধর্মের জন্য ? এই প্রশ্নে সমাধান কার কাছে ? দুর্নীতি ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে : মোস্তফা কুমিল্লার পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখেন ইকবাল: পুলিশ ঝিনাইদহে সাংবাদিক’কে প্রাণ নাশের চেষ্টা থানায় সাধারন ডায়েরী মানবদেহে শুকরের কিডনির সফল প্রতিস্থাপন

১২ শ’ কোটি টাকার চেকসহ যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০
  • ১৬১ দেখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি : ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক লোন সার্ভিস নামে ফেসবুক পেজ খুলে দেশব্যাপী প্রতারণার জাল বিস্তার করেছিল সিরাজগঞ্জের তাড়াশের যুবলীগ নেতা রাব্বী শাকিল ওরফে ডিজে শাকিল (৩২)। তিনি রিশান ইন্টারন্যাশনাল ও ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক লোন সার্ভিস নামের দুটি প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান।

দুই প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যবহার করে দেশব্যাপী প্রতারণার অভিযোগে ডিজে শাকিলসহ তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার (১২ আগস্ট) রাতে বগুড়া জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একটি টিম তাড়াশে ডিজে শাকিলের অফিসে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে।

এসময় তার অফিস থেকে উদ্ধার করা হয়েছে এক হাজার দুইশ এক কোটি টাকার ভুয়া চেক, সামরিক বাহিনীর ভুয়া নিয়োগপত্র, বিভিন্ন গণমাধ্যমের ভুয়া পরিচয় পত্র ছাড়াও অন্যান্য সরঞ্জাম।
গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন, তাড়াশ উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি রাব্বী শাকিল ওরফে ডিজে শাকিল, তার সহযোগী আইটি বিশেষজ্ঞ  হুমায়ুন কবির (২৮) ও ম্যানেজার হারুনার রশিদ (২৬)।

জানা গেছে, ইন্টারন্যাশনাল লোন সার্ভিসের নামে ফেসবুক পেজে বিজ্ঞাপন দেখে বগুড়ার আমায়রা এগ্রো ফার্মের স্বত্বাধিকারী আমানত উল্লাহ তারেক ও অভি এগ্রো ফার্মের স্বত্বাধিকারী আশিক তাদের সাথে যোগাযোগ করেন। কমিশনের মাধ্যমে তাদেরকে পাঁচ কোটি টাকা লোন পাইয়ে দেবার নাম করে কয়েক দফায় ১৪ লাখ ৩৫ হাজার টাকা নেয় ডিজে শাকিল।

এরপর তাদের যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে লোন অনুমোদনের চিঠি এবং সাড়ে চার কোটির দুটি চেকের স্ক্যান কপি মেইলে দেয়া হয়। কিন্তু দীর্ঘ দিনেও চেকের মূল কপি না দেয়ায় তারা খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন লোন অনুমোদনের চিঠি এবং চেকগুলো ভুয়া।

পরে তারা বিষয়টি বগুড়া জেলা পুলিশকে জানালে ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ইমরান মাহমুদ তুহিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাড়াশে অভিযান চালায়।

বগুড়া ডিবি পুলিশের ওসি আসলাম আলী জানান, গ্রেফতারকৃতদের অফিসে অভিযান চালিয়ে ভুয়া চেক ছাড়াও সামরিক বাহিনী ও সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ভুয়া নিয়োগপত্র ও চুক্তিনামা, ৬০টি সিম কার্ড, তিনটি কম্পিউটার ও বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার ভুয়া পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের নামে বগুড়া সদর থানায় প্রতারণা ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

আজ তাদের আদালতে প্রেরণ করা হবে এবং অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে বলে জানান জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম (বার)।

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102