বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:৩৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
জন্মদিনে নানা শ্রেণির মানুষের ভালো বাসায় সিক্ত আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ রুস্তুম আলী জন্মদিনে শুভেচ্ছায় সিক্ত যুবলীগের নেতা মোঃ আলমগীর হোসেন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে আগুনে পুড়ে বৃদ্ধার মৃত্যু শীতার্ত মানুষের ঘরে ঘরে কম্বল পৌঁছে দিচ্ছেন ঝাল মুড়ি বিক্রেতা মোহাম্মদ জাবেদ ইসলাম পর্ব ৫৮: “যে ইতিহাসটি বলা দরকার” : এডভোকেট খোন্দকার সামসুল হক রেজা বাঙ্গালীর মাতৃভাষা আন্দোলন সংস্কৃতি রক্ষা স্বাধীকার স্বাধীনতা ও বর্তমান উন্নয়ন প্রেক্ষাপট সন্ত্রাসী সংগঠন হুজিবি প্রধানসহ গ্রেফতার ৬; বড় হামলার পরিকল্পনা ছিল, বলছে সিটিটিসি গ্যাসে ভাসছে ভোলা, কঠিন হচ্ছে তোলা কর্ণেল (অব) শওকত আলীর ৮৬তম জন্মবার্ষিকীতে আবু সাঈদ তালুকদারের বিনম্র শ্রদ্ধা মিলেমিশে এ জীবনঃ কবি মোঃ নাসির উদ্দিন দুলাল

শেখ রাসেলের জন্মদিনে কৃষক লীগের আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, চিত্রাংকন ও পুরস্কার বিতরণ

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৩৩ দেখা হয়েছে

মোঃ ইব্রাহিম হোসেনঃ স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ সন্তান শহীদ শেখ রাসেলের ৫৭ তম জন্মদিন উপলক্ষে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ কৃষক লীগের পক্ষ থেকে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, চিত্রাংকন ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ ১৮ অক্টোবর ২০২০ রোজ রবিবার ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, চিত্রাঙ্কন ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জননেতা মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জননেতা এ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন এবং কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের সম্মানিত সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ ও সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি।

প্রধাণ অতিথির ভাষণে জননেতা মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন যে, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালোরাতে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা নস্বাত করার নিমিত্তে দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রে সেনাবাহিনীর উপপ্রধান লেঃ জেনারেল জিয়াউর রহমানের নির্দেশনায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়। অতঃপর সামরিক শাসন জারী করে করে জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ভূলুন্ঠিত করে।

১৫ আগস্ট সেই বিভিষিকাময় রাতে বঙ্গবন্ধুর ১০ বছরের শিশুপুত্র, নিষ্পাপ-নিরপরাধ, আদরের শেখ রাসেলকে ও হত্যা করতে দ্বিধাবোধ করে নাই। ওরা মনে করেছিল এদেশের প্রেক্ষাপটে মেয়ে সন্তান শেখ হাসিনা, শেখ রেহানা বেঁচে থাকলেও রাজনীতিতে সফলতা অর্জন করতে পারবে না। কিন্তু শিশু মনে করে শেখ রাসেকে জীবিত রাখলে একদিন বাংলার জনগণ বঙ্গবন্ধুর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও শেখ রাসেলের প্রতি মা-বাবা-ভাই-ভাবীদের হারানোর সহানুভূতির কারণে একদিন দেশের রাষ্ট্রক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হতে পারে। তাই সেরাতে শেখ রাসেলের আত্ম-চিৎকারে পাশানের হৃদয়ে কোনরূপ মমতার সৃষ্টি করেনি। তারা নির্মম-নৃশংসভাবে শেখ রাসেলকে হত্যা করে। আজ আমাদের প্রিয় ভাই শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে ৫৭ বছরে পদার্পণ করত। একদিন হয়তবা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরে বাংলাদেশের রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বলাভে সক্ষম হতো। আজ শেখ রাসেল-এর ৫৭ তম শুভ জন্মদিনে আমরা তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি। মহান আল্লাহ্ তাঁকে বেহেশত নসিব করুন। ৭৫ এর পালা বদলের কারণেই শিশু রাসেলকে জীবন দিতে হয়েছে ,৭৫ এর এই হত্যাকান্ডের সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে যারা জড়িত তাদের প্রতি নিন্দা ও ঘৃণা জানাই এবং অবশিষ্ট খুঁনিদের ফাঁসির রায় কার্যকর করতে হবে। খুঁনিদের ফাঁসির রায় কার্যকরের মাধ্যমে দেশকে কলংকমুক্ত করতে হবে। আপনারা ইদানিং লক্ষ করেছেন বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মিথ্যা সংবাদ সম্মেলনের তিব্র নিন্দ জানাই। আপনাদের ভোটাররা ভোট দিতে যায়না। আপনারা নির্বাচন করেন জিতার জন্য নয়, মনোনয়ন বাণিজ্য করার জন্য। মনোনয়ন বাণিজ্য করাই বিএনপির প্রধান লক্ষ ও নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করাই তাদের প্রধান কাজ। আপনাদের ভোটাররা কেন ভোট দিতে যায়না কারণ আপনাদের কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে থাকে আপনাদের দূর্নীতিবাজদের দ্বারা। আপনাদের এই মুখোশ জনগণের কাছে উন্মোচিত হয়েছে। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন মানুষ কতটুকু নির্লজ্য হলে এই ধরনের মিথ্যাচার করতে পারে। বেগম খালেদা জিয়া নাকি গৃহ বন্দি হয়ে আছেন। এটি জগণ্য একটি মিথ্যাচার। তিনি এতিমের টাকা আত্বসাত করেছেন সেই মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন। বিচারে দুর্নীতিবাজ হিসাবে তার সাজা হয়েছে। আপনারা আন্দোলন ও আইনি লাড়াইয়ে তাকে মুক্ত করতে ব্যার্থ হয়েছেন। আপনাদের উচিৎ ছিল শেখ হাসিনার প্রতি আজীবন কৃতজ্ঞ থাকা। কারণ শেখ হাসিনা আপনার নেত্রীর প্রতি সদয় হয়ে মানবতার পরিচয় দিয়ে তাকে মুক্তি দিয়েছেন।

সাম্প্রতিক সময়ে সিলেটের এমসি কলেজে ও বেগমগঞ্জে ধর্ষন ও নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটিয়েছিল তাদের সকলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যারা জঘন্য ধর্ষনের সাথে সম্পৃক্ত তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড ইতিমধ্যে পাশ হয়েছে। অধ্যাদেশ আকারে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সিলেটের রায়হানকে হত্যাকারী এসআই আককবর কে অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার সকল অন্যায় অপরাধের বিরুদ্ধে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

বিশেষ অতিথি এ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন বঙ্গবন্ধুর শিশুপুত্র শেখ রাসেলের হত্যাকান্ড ও বিভিষিকাময় ১৫ আগস্টের স্মৃতি চারণ করেন। শিশু শেখ রাসেলকে হত্যার জন্য তিনি জিয়াউর রহমানকে আসামী করে মরনোত্তর বিচার দাবী করেন।

সভার সভাপতি বাংলাদেশ কৃষক লীগের সম্মানিত সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ বলেন যে, আমাদের গর্বের প্রধানমন্ত্রী কৃষকরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনা এমপির আদরের ভাই শিশু রাসেল হত্যার তীব্র নিন্দা ও ’৭৫ এর নির্মম হত্যাকান্ডের বেনিফিশিয়ারী জিয়াউর রহমানের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি তার মরোনত্তর বিচার দাবী করেন। শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে বাঙ্গালী তাকে ঘিরে একটি নতুন স্বপ্ন দেখার চেষ্টা করতে পারত, যুব সমাজের নেতৃত্ব দিতে পারত সর্বপরি জাতি গঠনে কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারত। আজ আমরা যা সজীব ওয়াজেদ জয় ও সায়মা ওয়াজেদ পুতুলের মধ্যে খুঁজি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আমরা এতটুকু সান্তনা দিতে পারি যে, নেত্রী আপনার আদরের ভাই আজ আপনার কাছে না থাকলেও আমরা লক্ষ লক্ষ কৃষক সন্তান আপনার ভাই হিসেবে পাশে রয়েছি। প্রয়োজনে আমরা আপনার নির্দেশে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে শেখ রাসেলের রক্তের ঋণ শোধ করব।

বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি তার বক্তৃতায় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকের বুলেটে খুন হয়েছে আমাদের প্রিয় ভাই শেখ রাসেল। আমরা আর তাকে আমাদের মাঝে ফিরে পাবনা। আমরা এদেশের লক্ষ লক্ষ শিশু কিশোরের মাঝে তার প্রতিচ্ছবি দেখতে পাই। আমরা তার রুহের শান্তি কামনা করি। আমরা দোয়া করি আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করুন এবং শহীদের মর্যাদা নসিব করুন।

পরে প্রধান অতিথি ও অতিথিবৃন্দ চিত্রাঙ্গকন প্রতিযোগীতার বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার তুলে দেন।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শেখ রাসেলের জন্মদিন উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক আলহাজ্জ আকবর আলী চৌধুরী, সদস্য সচিব কৃষিবিদ হাবিবুর রহমান মোল্লা, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু, কৃষিবিদ শাখাওয়াত হোসেন সুইট, মোঃ আবুল হোসেন, এ্যাড. গাজী জসিম উদ্দিন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক জনতার আদালত পত্রিকার সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী হক, আসাদুজ্জামান বিপ্লব, সাবেক দপ্তর সম্পাদক অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম পানু, সাবেক সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য একেএম আজম খান, সৈয়দ সাগিরুজ্জামান শাকীক, মোঃ রেজাউল করিম রেজা, হিজবুল বাহার রানা, ঢাকা মহানগর সভাপতি আলহাজ্জ মাকসুদুল ইসলাম, আলহাজ্জ আব্দুস সালাম বাবু, জাকিউদ্দিন রিন্টু, হাজী আব্দুল রব খান, মোঃ হালিম খান, মোঃ আমজাদ হোসেন, মোঃ আহসান হাবিব প্রমুখ।

সবশেষে ১৯৭৫ সালের নির্মম হত্যাকান্ডে বঙ্গবন্ধু সহ পরিবারের সকল সদস্য বিশেষ করে বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কৃষকরতœ শেখ হাসিনা এমপি এর আদরের ভাই নিষ্পাপ শিশু শহীদ শেখ রাসেলের ৫৭ তম শুভ জন্মদিনে তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন পীর ইয়ামিনী জামে মসজিদের খতিব আলহাজ্জ মুফতি মাওলানা এমদাদুল ইসলাম।

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102