April 14, 2024, 5:05 am
শিরোনামঃ
বাংলা ও বাঙ্গালীর নববর্ষঃ আঃ রহমান শাহ ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন কৃষক লীগ নেতা মোঃ হালিম খান পদ্মা সেতুতে একদিনে সর্বোচ্চ টোল আদায়ের রেকর্ড জাহাজেই ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করলেন জিম্মি নাবিকরা পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছে আলহাজ্ব লায়ন মোঃ দেলোয়ার হোসেন বাংলাদেশের আকাশে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে, কাল ঈদ সবার সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করুন :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন মোঃ বশির আহম্মেদ রাজবাড়ীর কালুখালীতে বকেয়া বেতন ভাতার দাবিতে কারখানায় শ্রমিকদের বিক্ষোভ রাজধানী মোহাম্মদপুর মোঃ রুস্তুম আলীর আয়োজনে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

রাজনীতি ভোগের নয়, যাঁদেরকে দেখে অনুপ্রানিত হয়ে ছিলাম

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Saturday, July 15, 2023
  • 102 Time View
রেবেকা মমিন তাঁদের মাঝে অন্যতম। ১৯৭৫ সালের পর থেকে রায়ের বাজার ক্লাবের পাশে, ভাড়া বাড়ীতে থাকতেন। ধানমন্ডি ১৫ নম্বর স্টাফ কোয়ার্টারের সামনে আমার দোকান হওয়াতে, কাস্টমারের তালিকায় ছিলেন প্রিয় নেতা তোফায়েল আহমেদ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী মেজর জেনারেল মান্নান সিদ্দিকী, সাংবাদিক বখতিয়ার সিদ্দিকী, সাবেক রাষ্ট্রপতি আব্দুল রহমান বিশ্বাস,জয়নাল হক সিকদার, রেবেকা মমিন সহ দেশের অভিজাত শ্রেনির। একটি মাত্র মাংসের দোকান হওয়াতে, সব সময় লাইন থাকতো। রেবেকা মমিন মহিলা হওয়াতে, আগে দিয়ে দিতাম। অথবা পরে বাড়ীতে পৌচিয়ে দিতাম। মামী বলে ডাকতাম। আব্দুল মমিন সাহেব অনেক কম কথা বলতেন, রবেকা মমিন ছিলেন চটপটে হাস্যজ্জল। আমার সাথে অনেকটা ফি ছিলো, একদিন জানতে চাইলাম, মামী এই নিরব লোকটার সাথে আপনার দিন কাটে কেমনে ? প্রতি উত্তরে বলেছিলো, এই লোকটা কতোবড় মনের অধিকারী, তুমি যদি জানতে ? আমি ছাড়া ওর আর কে আছে। মানুষের জন্য জীবনটা, বঙ্গবন্ধুর জন্য প্রানটা। আইনের বইএর সাথে সম্পর্ক। কোট আর ঘরের মাঝে সিমাবদ্ধ, বঙ্গবন্ধু হত্যার পর থেকে।
সয় সম্পর্তি কে খায়, কে দেখে, তার কোনো হিসেব নাই তার কাছে। মেয়ে স্কুল, সংসার আমাকেই সমলাতে হয়, উদার মনের অধিকারী রেবেকা মমিন কে কখনো হাসি ছাড়া দেখিনি। গ্রামের গরিব দুঃখী মানুষের জন্য সব সময় বাড়ীর দরজা খোলা থাকতো। গুলশানের বাড়ী ভাড়ায় সংসার চলতো, তবু কিছুটা থাকতো গ্রাম থেকে আসা মানুষের জন্য। নেত্রকুনার একটি অনুষ্ঠানে ফুল দিতে এসেছিলেন রেবেকা মমিন, বঙ্গবন্ধু বিয়ে করিয়ে দিলেন।
জীবনের শেষ সময়টা পর্যন্ত জাতির জনকের কণ্যার সম্মান রক্ষার্তে চার কোটি টাকার সম্পর্তি আশ্রয়ন প্রকল্পে দান করে দিয়েছেন, রেজিস্ট্রারের টাকাও নিজে বহন করেছেন। মমেন সাহেবের পিতামহ সহ তাদের দানের পরিমান তিনশত কোটি টাকা। স্কুল কলেজ, মসজিদ মাদ্রাসা কবরস্থান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।নেত্রকুনার উন্নয়নে মমিন পরিবারের অবদান সর্বজন স্বীকৃত। দেশপ্রেম ছিলো সদাজাগ্রত। টাকা পাচারের রাজনীতি তাদেরকে স্পর্শ করতে পারেনি।বঙ্গবন্ধুর স্পর্শে, রেবেকা মমিনদের অনুপ্রেরণা রাজনীতির জন্য উৎসাহিত হয়ে ছিলাম। যাদের জন্য রাজনীতির দুর্নীতি আমাদেরকে স্পর্শ করতে পারেনি। কমিটি বানিজ্য, টাকা পাচার, রাজনীতির ধোঁকাবাজির জন্য কিছুটা হলেও মন খারাপ হয়। টাকা দিয়ে রাজনীতি করতে হবে, ভাবতে পারি না। রেবেকা মমিন দের জন্য শ্রদ্ধা কমাতে পারি না, পারি না মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ও আলহাজ্ব মোঃ সাদেক খান এমপির জন্য আওয়ামীলীগ থেকে বিরত থাকতে। কী হবে বাঙালি জাতির ভাগ্যের পরিবর্তনের ? দেশ বাঁচলে জাতির ভাগ্যের পরিবর্তন হয়, নিজের আখের ঘুছাতে গিয়ে সর্বনাশ, রেবেকা মমিনদের চাইতে ভালো আর কেউ বুঁজে নাই। এক এক করে হারিয়ে যাচ্ছে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, এমএ সাত্তার ভুইয়া, আলহাজ্ব মকবুল হোসেন, মেয়র হানিফ,সাহারা খাতুন’রা, নতুন রূপে কারো আবিস্কার নাই।মতিয়া চৌধুরী, তোফায়েল আহমেদ,শেখ হাসিনার পরে আওয়ামীলীগের কী হবে ? বিনম্র শ্রদ্ধা মমিন পরিবারের জন্য।
লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব, রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত সভাপতি ও  খাস খবর বাংলাদেশ পত্রিকার সম্মানিত উপদেষ্টা মন্ডলী জনাব রবিউল আলম।
শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102