শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখা অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার শৈলকুপায় বামগণতান্ত্রিক জোটের সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস প্রতিরোধ দিবস পালিত সব শঙ্কা উড়িয়ে বিশ্বকাপের মূলপর্বে বাংলাদেশ সাঈব ঈমাম চৌধূরী ৪ নং সলিমুললাহ রোড ইউনিট আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনার শীর্ষে কোরআন অবমাননা কারা করতে পারে? যাদের উপর নাজিল হয়েছে ধর্ম কি মানুষের জন্য ? না-কি মানুষ ধর্মের জন্য ? এই প্রশ্নে সমাধান কার কাছে ? দুর্নীতি ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে : মোস্তফা কুমিল্লার পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখেন ইকবাল: পুলিশ ঝিনাইদহে সাংবাদিক’কে প্রাণ নাশের চেষ্টা থানায় সাধারন ডায়েরী মানবদেহে শুকরের কিডনির সফল প্রতিস্থাপন

যশোরে জিংক ধান ব্রি ধান৮৪ এর প্রদর্শনী শীর্ষক কৃষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১
  • ৫৭ দেখা হয়েছে

সুব্রত কুমার ঘোষঃ এগ্রিকালচারাল এডভাইজরী সোসাইটি (আস) ও হারভেষ্টপ্লাস বাংলাদেশ এর সহযোগিতা আজ ৭ জুলাই ২০২১ রোজ বৃহস্‌পতিবার যশোর জেলার সদর উপজেলার তালবাড়ীয়া গ্রামে ৮০ জন কৃষকদের নিয়ে জিংক ধান ব্রি ধান৮৪ এর প্রদর্শনী শীর্ষক কৃষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, কৃষিবিদ মোঃ সাজ্জাদ হোসেন উপজেলা কৃষি অফিসার, ডিএই, সদর, যশোর।

এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কৃষিবিদ মোঃ জাহিদুল আমিন, অতিরিক্ত পরিচালক, যশোর অঞ্চল, যশোর।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কৃষিবিদ বাদল চন্দ্র বিশ্বাস, উপ-পরিচালক, ডিএই, যশোর, কৃষিবিদ মোঃ সাইফুল ইসলাম, এআরডিও, হারভেষ্টপ্লাস বাংলাদেশ, জয়ন্ত কুমার দাস, উপ-সহকারী কৃষি অফিসার, ডিএই, সদর, যশোর।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন যে, মানবদেহের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও রোগ প্রতিরোধের জন্য জিংক একটি অত্যাবশ্যকীয় পুষ্টি উপাদান। বাংলাদেশের মানুষের শরীরে রক্তে জিংকের তীব্র অভাব পরিলক্ষিত হয়। বর্তমানে দেশে ৪৪% শিশু এবং ৫৭% অপ্রসতি ও কুমারী জিংকের ঘাটতিতে ভূগছেন।বাঙ্গালির ভাত হল প্রধান খাদ্য যা মোট ক্যালরীর চাহিদার প্রায় ৭০% পূরণ করে। কিন্তু ভাত থেকে প্রাপ্ত পুষ্ঠি উপাদানের মধ্যে জিংক এর যথেষ্ঠ ঘাটতি রয়েছে। খাদ্য হিসাবে গ্রহণকৃত ভাতে জিংক এর ঘাটতির বিষয়টি উপলদ্ধি করে বাংলাদেশে ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট এর গবেষকগণ নিরালস ভাবে গবেষনা চালিয়ে যাচ্ছে। বাঙ্গালির প্রধান খাদ্য ভাতের মধ্যে প্রয়োজনীয় পুষ্টিমান নিশ্চিত করতে জিংক সমৃদ্ধ ব্রি ধান৬২, ব্রি ধান৬৪, ব্রি ধান৭২, ব্রি ধান৭৪ এবং ব্রিধান৮৪ জাত গুলি উদ্ভাবন করেছে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি)। জাতীয় বীজ বোর্ড কর্তৃক জাত গুলি বানিজ্যিক ভাবে চাষাবাদ এর জন্য ২০১৩-২০১৭ সালে অনুমোদন দিয়েছে। অন্যদিকে দেশের সমগ্র জনগোষ্ঠীর পুষ্টি সমৃদ্ধ নিরাপদ খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নানামুখী পরিকল্পণা নিয়ে এগিয়ে চলছে সরকার।

ব্রি ধান৮৪ গত ২০১৭ সালে সরকার বোরো মৌসুমে চাষাবাদের জন্য অনুমোদন করেছেন। জাতটি অধিক ফলনশীল এবং ভাল ব্যবস্থাপনায় হেক্টর প্রতি ৮ টন ফলন পাওয়া যায়। পূর্ণ বয়স্ক গাছের উচ্চতা ৯৬ সেঃমিঃ হয়। গাছ মজবুত বিধায় ঢলে পড়ে না। চালের আকার আকৃতি মাজারি চিকন লম্বা ও রং হালকা লালচে। প্রতি কেজি চালে জিংক এর পরিমান ২৭.৬ মিলিগ্রাম। এর প্রোটিনের পরিমান ৯.৭%। বি ধ্রান৮৪ এর জীবনকাল ব্রি ধান২৮ এর চাইতে ২-৩ দিন কম।

জিংক ধান ব্রি ধান৮৪ এর প্রদর্শনী শীর্ষক কৃষক কর্মশালাটি সফল বাস্তবায়নে আস এর এরিয়া কোর্ডিনেটর মোঃ সাইফুল ইসলাম ও সুব্রত কুমার ঘোষ নিরলস ভাবে কাজ করেন।

 

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102