April 23, 2024, 3:59 am
শিরোনামঃ
জনমত পারমাণবিক বোমাকে পরাজিত করে,নির্বাচন সত্যকে উপজেলা নির্বাচন থেকে আওয়ামীলীগের নতুন নেতৃত্ব উঠে আসবে গরু ও মাংস আমদানীর বিতর্কে অংশ নিতে চাইছিলাম না। ধর্ম নিরপেক্ষ ভারত কে বাঁচাতে,বিজেপি বিরোধী ঐক্য চাই তাপমাত্রা কমাতে যেসব পরামর্শ দিলেন চিফ হিট অফিসার বুশরা কৃষক লীগ নেতাদের গণভবনের শাকসবজি উপহার দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্দোলনে ও নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি নিজেরাই মহাবিপদে আছে: ওবায়দুল কাদের শুধু প্রশাসন দিয়ে মাদক ও কিশোর গাং প্রতিরোধ করা সম্ভব নয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে ব্যর্থ হলে ? গুচ্ছভুক্ত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

মোগল থেকে বৃটিশ, বাঙালির ইতিহাস থেকে শেখেনি, ভারত-পাকিস্তান শিখতে পারলো না

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Tuesday, August 29, 2023
  • 78 Time View
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান, বাঙালির ইতিহাস ঐতিহ্য রক্ষার জন্য, মুক্ত স্বাধীন জাতি স্বত্বার আন্দোলনের অংশ হয়েছিলেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা মানচিত্র ও ভাষার ঠিকানার সন্ধান দিয়েছেন, বাঙালি জাতিকে মুক্ত করতে পারেননি,পারেননি বাংলার স্বাধীনতা ফিরিয়ে দিতে । জানিনা, বাংলা ও বাঙালি জাতি কোনোদিন মুক্ত হতে পারবেন কি-না ? মোগল থেকে বৃটিশ, বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্য নিয়ে খেলেছে। বাঙালির রক্ত চুষে খেয়েছে। স্বাধীনতা ও মুক্তিকামী সংগ্রামে, বৃটিশ বিরোধী অসহযোগ আন্দোলনে বাঙালির অবদান ছিলো সিংহভাগ। পাকিস্তান বিরোধী ভাষা আন্দোলন থেকে বাঙালির গনজাগরণ। বৃটিশরা প্রতিশোধের আগুনে বিহার,পাঞ্জাব, কাশ্মী কে সীমান্ত অঞ্চলের সুবিধা নিয়ে দুইভাগ করেছে। বাঙালির জন্য কোনো সীমান্ত খুঁজে না পাওয়াতে, পুর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের অংশ করা হয়েছে,ধর্মের বিভাজনে,বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের প্রতিশোধের জন্যে। ভারতীয় পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিদের নেতৃত্বে ছিলো কাপুরুষের পরিচয়।জাতি স্বত্বা কে বিশর্জন দিয়েছিলো। পুর্ব পাকিস্তানের বাঙালি নেতৃত্ব ধর্মের অনুশাসনে ছিলো, মাওলানা ভাসানী, হোসেন শহিদ সোহরওয়ার্দী, মাওলানা তর্কবাগীশ, শেরে বাংলা ফজলুল হক, আদী ও পাতি নেতারা, বাংলা ও বাঙালি কে নিয়ে ভাবেনি। নবাব সিরাজ দৌল্লাহর সুবে বাংলার স্বাধীনতার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জয় বাংলার শ্লোগান পশ্চিমবঙ্গে নয়তো? বাঙালিরা ধর্মের আনুগত্য থেকে বেরিয়ে, বিজেপির জন্য চ্যালেন্স হয়েছে । নেতৃত্বের ব্যার্থতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের বুকে রক্তক্ষরণ হয়েছে, বাংলার স্বাধীনতা ও বাঙালির মুক্তি আজও অর্জিত হয় নাই।
ভারতের বাঙালিরা সেদিন, স্বাধীনতার অর্থ বুজেনি। আজ স্বাধীনতা অর্জন করার ক্ষমতা তাদের নেই, নেতৃত্বের অভাবে। বঙ্গবন্ধু হাজার, লক্ষ বছরে একজনই জন্মায়। একটি বাংলাদেশ সৃষ্টি হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিরা সেই সুযোগটাও নিতে পারেনি। মানবতার রানী, রানী এলিজাবেথ বৃটিশ সিংহাসনে আসিন না হলে, আজও ভারত বর্ষ পরাধীন থাকতে হতো। সশ্রস্ত্র সংগ্রাম, ভাষার জন্য জীবনদান বাঙালি সংস্কৃতির অংশ। পারাধীনতার শিকল ভাঙার কবিতায়, বাঙালির রক্তের শিহরন। একটি তারের বেড়ায় হিমায়িত করে দিয়েছে। জাতিসংঘে বাংলা ভাষার প্রতিনিধিত্ব আছে, বিশ্ব বাঙালির নেতৃত্ব ছিলো, বাঙালি জাতির পিতা ছিলো। সংস্কৃতি সাহিত্য, জাতীয়তাবাদের মিল আছে।
নাই শুধু কিছু বাঙালির স্বাধীন ঠিকানা। ওরা কিছুটা ঢেকুর তুলে কবিতায়। ভাষার জন্য শহিদ মিনার বানায়, একুশের বই মেলা বসায়। দুধের স্বাদ গোলে মিঠায়। মোগলের শেষ সম্রাট জাফর শাহের পতন না হলে, জাতি ধর্ম বর্ণ নির্ভিশেষে ভারতবর্ষের ইতিহাস অন্যভাবে লেখতে হতো, মুসলিম খৃষ্টান হিন্দু নয়, সব বাঙালির প্রান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। শেখ হাসিনা হাল ধরেছে। একদিন হয়তো বাঙালির মুক্তি হবে, বাঙালি জাতীয়তাবাদ হবে বিশ্বের মানবাধিকার ও গনতন্ত্রের চালিকাশক্তি। জেগে উঠো হে বাঙালি, জেগে উঠো।
লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব, রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত সভাপতি ও খাস খবর বাংলাদেশ পত্রিকার সম্মানিত উপদেষ্টা মন্ডলী জনাব রবিউল আলম।
শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102