শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৪:২৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
শৈলকূপ উপজেলার ১১ নং আবাইপুর ইউনিয়নের ঢাকায় অবস্থানকারী দের নিয়ে গঠিত হলো লিজেন্ড এগারো নামে একটি ক্লাব বধ্যভূমি, একটি বটগাছ ও একজন রবিউল প্রানি সম্পদ মন্ত্রনালয় ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশন কোন পথে কোরবানির আয়োজনে ? বৃষ্টির দিনেও রান্না করা খাবার নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে রাজধানী মোহান্মদপুর ক্লাব সাধারণ সম্পাদক পদে সকলের পছন্দ হাফেজ মাওলানা মোঃ ইসমাইল হোসেন মানি ইজ নো প্রবল্যামের রাজনীতির জনক জিয়া, বঙ্গবন্ধু ছিলেন রাজনৈতিক কৃপণতার জনক অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে কারিগরি শিক্ষা: শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল ইভিএম পেশীশক্তিকে প্রতিরোধে সহায়ক, দিনের ভোট দিনের জন্য মুলমন্ত্র ৩৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় শেখ মোঃ জহিরুল ইসলাম অপু বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা এবং ঔষধ বিতরণের ব্যবস্হা করেছে বাংলাদেশ ডেন্টাল হেলথ সোসাইটি কেন্দ্রীয় কমিটির

মনিরামপুরে জিংক ধানের উপর এসএএও দের সক্ষমতা বৃদ্ধি প্রশিক্ষণ

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম সোমবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১০৪ দেখা হয়েছে

সুব্রত কুমার ঘোষঃ এগ্রিকালচারাল এডভাইজরী সোসাইটি (আস) ও হারভেষ্টপ্লাস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে ২৭ ডিসেম্বর ২০২০ রোজ রবিবার যশোর জেলার মনিরামপুর উপজেলার, উপজেলা কৃষি অফিসের কনফারেন্স রুমে জিংক ধানের সম্প্রসারণের জন্য উপ-সহকারী কৃষি অফিসার (এসএএও) দের সক্ষমতা বৃদ্ধির উপর প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত প্রশিক্ষণের মনিরামপুর উপজেলর বিভিন্ন ব্লকের ২৬ জন পুরুষ ও ৪ জন মহিলা মোট ৩০ জন উপ-সহকারী কৃষি অফিসার (এসএএও) অংশগ্রহণ করেন।

প্রশিক্ষণ কোর্সেটি উদ্বোধন ও প্রশিক্ষণ প্রদান করেন, কৃষিবিদ হিরক কুমার সরকার, উপজেলা কৃষি অফিসার, ডিএই, মনিরামপুর যশোর।

প্রশিক্ষণ কোর্সেটি ঢাকা থেকে ভার্চুয়াল এর মাধ্যমে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন, কৃষিবিদ মোঃ সাইফুল ইসলাম, এআরডিও, হারভেষ্টপ্লাস-বাংলাদেশ।

প্রশিক্ষণ কোর্সে প্রশিক্ষকগণ জিংক ধান সম্প্রসারণ ও বাজারজাতকরণ এবং ভোক্তা পর্যায়ে জিংক চাউল পৌছানোর উপর বিভিন্ন ভাবে দিক নির্দেশনা প্রদান করেন এবং জিংকের উপকারীতা সম্পর্কে বলেন, জিংক মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, বৃদ্ধিমত্তা বিকাশ সহ নানাবিধ শারীরবৃত্ত্বীয় প্রক্রিয়ার জন্য অতি প্রয়োজনীয়। জিংক বিভিন্ন সংক্রামক ব্যাধি যেমন, ডায়রিয়া নিউমোনিয়া, ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি কমাতে সাহায্যে করে।সুতরাং জিংক ঘাটতিজনিত অপুষ্টি দূরীকরণ জিংক জাতের ধান চাষ সম্প্রসারনের মাধ্যমেই করা সম্ভব।প্রশিক্ষণ কোর্সে জিংক ধানের বিভিন্ন জাতের উপর প্রশিক্ষন দেন প্রশিক্ষকগণ।

প্রশিক্ষনে সার্বিক ভাবে সহযোগিতা করেন, মোঃ সাইফুল ইসলাম ও সুব্রত কুমার ঘোষ, এরিয়া কোর্ডিনেটর, আস।

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102