May 25, 2024, 9:29 pm
শিরোনামঃ
বেটারী চালিত রিকশা চালকদের তুলকালাম,কর্মহীন মানুষের জন্য শেখ হাসিনাই ভরসার স্থান নিপুণ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির অভিশাপ না আশির্বাদ ? উত্তর ডিপজলের কাছেও পাওয়া গেলো না জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের সমাধিতে আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের শ্রদ্ধা জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের সমাধিতে কৃষক লীগের শ্রদ্ধা শৈলকুপার এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা এমন যদি হতোঃ কবি মোঃ খোকন খান ইন্টারন্যাশনাল আইকনিক এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডে মনোনীত ডেইজী সারোয়ার জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফোরামের কমিটি গঠন সাংবাদিককে হেনস্থাকারী ছাত্রলীগ নেতার বিচার চায় বিডিজেএ ঘটনার সময় বাংলাদেশে ছিলাম, আমাকে ফাঁসানো হয়েছে : আক্তারুজ্জামান শাহীন

বাংলা ও বাঙ্গালীর নববর্ষঃ আঃ রহমান শাহ

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Saturday, April 13, 2024
  • 164 Time View

পহেলা বৈশাখ বাংলার ঐতিহ্য মন্ডিত একটি আনন্দ উৎসবের দিন। ছোটো বেলায় বাংলা নব বর্ষের মেলা বসত খেলার মাঠে, রং বে রংগের বাহারি খেলনা, এক পাশে চরকিতে, চরকগাছে চড়া, দিগন্ত প্রশারিত শুকনো মাঠে ঘোড় দৌড়, সন্ধ্যায় পুতুল নাচ, ছেলে বুড়ো সবাই সে মেলায় যেতো যার যা প্রয়োজন, তাঁতের কাপড়, কাঠের আসবাবপত্র, কাঠের ঘোড়া, বাচ্চাদের গাড়ী, রংঙ্গিন শাড়ি, চুড়ি বেলোয়ারী, রেশমি চুরি, কাগজের ও প্লাস্টিকের খেলনা, ঝারবাতি, হাওয়াই মিষ্টি, জিলিপি, নকুল, চিনি ও ছানার তৈরী দানাদার, রশোগোল্লা, ময়রার মিষ্টি, কুড়ির মুড়ি মুড়কি, খাঁজা, গজা, খ্যাতের ফল, দোকানে দোকানে হাল খাতা, গোলাপি পোষ্ট কার্ডে হাল খাতার দাওয়াত, বাড়িতে মাছ মাংসের উত্তম ভোজসভা, নতুন আত্মীয়ের, মেয়ে জামাই বেড়াইতে আশা সে কি আনন্দ।
জমি চাষের জন্য আউস ধানের বিজতলা তৈরী করা, জমিদার বা সরকারী তহসীলে খাজনা দেয়া, বৈশাখের প্রথম বর্ষন ও জোবার জোয়ারে বিলে নতুন পানি, কৈ মাছের উজান ঠেলে ডাঙ্গায় ওঠা সে এক মনোরম দৃশ্যপট। আম, জাম, কাঠাল গাছে নতুন মুকুল আর ফুলের গন্ধে একটা মৌ মৌ পরিবেশ সাথে মৌ মাছির আনা গোনা, চাঁদনী রাত। এ যেন পক্ষ কাল ব্যাপি উৎসব।
কবে সেই নৈনীতালের মাঠে ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের স্বদেশী নেতারা পহেলা বৈশাখে বিদেশী পন্য বর্জন করে দেশী পন্য কেনার জন্য স্বদেশী নেতারা ডাক দিয়ে ছিলো। মোঘল সম্রাট আকবর ফসলের খাজনা আদায়ের জন্য ভারত বর্ষে বাংলা সন চালু করেন। তারও বহুকাল পূর্বে সম্রাট অশোকের শাসনামলে বাংলা সনের গোড়াপত্তন হয়ে, সম্রাট আকবর তার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি দেন।
স্বদেশী নেতারা বৃটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলন ও বিদেশী পন্যের বর্জন করে দেশী পন্য ব্যাবহার করার জন্য নৈনীতালের মাঠে দেশী পন্যের মেলা থেকে যার যা প্রয়োজন তা নিজেরা কিনেন আর জনগনকে কিনতে উদ্ভুদ্ধ করেন। সেই ঐতিহ্যের ধারায় স্বাধীনতার পর ঢাকায় আজিমপুরে পলাশীর কাছে দেশী পন্যের মেলা বসতো, পরে বিসিকের উদ্যোগে ধানমন্ডি মাঠে ম্যালা বসতো, খাদি, গরদ, রাজশাহী সিল্ক, পাঞ্জাবি, ধুতি, নানা রংগের পোশাক, গিফ্ট কেনা, গান বাজনা পুতুল নাচ আরো কতো কি।
বঙ্গবন্ধুকে ১৯৭২ সালে মুক্তি যোদ্ধা ও বিডিআর সদস্যরা পিলখানায় পহেলা বৈশাখে পান্তা ভাত আর কাঁচা মরিচ (সাথে মাছ ভাজাও ছিলো উজ্জ) (কৃষকের প্রাতহ্রাস) খেয়ে বাংলা পহেলা বৈশাখ, স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পহেলা বৈশাখ উদ্ভোদন করেন। আর্ট কলেজ ক্যাম্পাসথেকে বার্নাঢ্য রেলী সহকারে ঢাকা প্রদক্ষিন, শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও দেয়ালে আল্পনা আকা, বন্ধু বান্ধব মিলে সন্ধায় গান সোনা।
কালক্রমে আমরা কিছু রেখে কিছু বাদ দিয়ে এখন রমনা পার্কের আশেপাশে, বৈশাখী মেলা বসিয়ে ঘটা করে পান্তা ভাত, ইলিশ মাছ, বেগুন ভাঝি, আলু ভর্তা, লাল সাদা শাড়ী পরে, রমনা বটমূলে বাংলা গানের আয়োজন করে উদযাপন করি। সরকার বৈশাখী ভাতাও চালু করেছেন, সবকিছু দেখে কেনো যেন মনে হয়ে দেশাত্মবোধ, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য, স্বাধীনতা মিলিয়ে যে পহেলা বৈশাখ তা আজ, পোশাকি, রং ডং এর মধ্যে আটকে গেছে, স্বদেশী, দেশাত্মবোধ কমে গেছে। বাংগালী আবার বঙ্গালী হয়ে উঠুক সেই কামনা করি।

লেখকঃ ঢাকা মহানগর উত্তর মোহাম্মদপুর থানার ৩১ নং ওয়ার্ডের দপ্তর সম্পাদক আঃ রহমান শাহ।

শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102