June 24, 2024, 7:42 pm
শিরোনামঃ
১৪ জেলায় নতুন পুলিশ সুপার আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ঢাকা মহানগর উত্তর মৎস্যজীবী লীগের শ্রদ্ধা পর্ব ১০৯: “যে ইতিহাসটি বলা দরকার” : এডভোকেট খোন্দকার সামসুল হক রেজা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মোঃ নুরে আলম সিদ্দিকী এর শুভেচ্ছা আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সাজেদুল ইসলাম এর শুভেচ্ছা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মোঃ জাফর ইকবাল (বাবুল) এর শুভেচ্ছা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ৩১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি সভা ১৫ লাখ টাকায় ছাগল কেনা ইফাত আমার ছেলে নয়: রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন এমপিকে ফুলের শুভেচ্ছা জানালেন রামপুরা থানা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ কাঁঠাল খাওয়ার উপকারিতা

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, ঐক্যের প্রতিক শেখ হাসিনা জেলা,নগর ঐক্য বিনষ্টকারী কি-না ?

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Wednesday, September 13, 2023
  • 128 Time View
ক্ষমতার দ্বন্দ্বে, মনের আনন্দে আদর্শচুক্ত মানুষের মাধ্যমে, মজিব আদর্শ বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। বাঙালির প্রানের সংগঠন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মানব সেবার ইতিহাস বহন করে, ত্যাগের মহিমায় । এই সংগঠনে ক্ষমতার দ্বন্দ্বে যারা নিজেকে ভুলে যান, শেখ হাসিনা তাদের হতে পারে না। বঙ্গবন্ধু হত্যার পরের ইতিহাস আমাদের সবার জানা, কেউ হৃদয়ে ধারন করেছে,কেউ বঙ্গবন্ধুকে বিক্রি করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাসন পরিসমাপ্তি হয়েছিলো ১৯৮১ সালে। আওয়ামীলীগ ঐক্যের প্রতিক হওয়ার মাধ্যমে,ফলাফল বাঙালি জাতির সামনে। বিস্তারিত আলোচনায় যাচ্ছি না।
শেখ হাসিনার বিকল্প নাই বলে। আমাদের অনেক বিষয় শেখার ছিলো শিখতে পারলাম না, চেষ্টা করলাম না। জেলা, উপজেলা, নগর মহানগর, ওয়ার্ড ইউনিয়ন, নতুন করে যুক্ত হয়েছে ইউনিট আওয়ামীলীগ, কমিটির ভারে নেতার সংখ্যা অতিরিক্ত। নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব সামাল দেওয়া যাচ্ছে না।অতি সন্যাসিতে গাজা নষ্ট। ইতিমধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামীলীগের দ্বন্দ্ব সামনে এসেছে। মেয়র,কাউন্সিলর, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সমন্বয়হীনতায় ঢাকার সাংগঠনিক দুর্বলতা প্রকাশ পেয়েছে। জেলা উপজেলা, ইউনিয়ন কমিটির দ্বন্দ্ব জন্মগত, ক্ষমতার জন্য। ক্ষমতাহীন আওয়ামীলীগ দেখার দুর্ভাগ্য হয়েছে আমার। স্বাধীনতার পুর্বে এবং বঙ্গবন্ধু হত্যার পরে। কমিটি করার লোক পাওয়া যায় নাই।
কমিটির বানিজ্যের প্রশ্ন উঠে নাই, সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের দায়ীত্ব নিতে চায় নাই, টাকা খরচ করার ভয়ে। বাংলাদেশের অবস্থা বুঝে নিবেন, আমার ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ইতিহাস থেকে। ১৯৭৭ সালের কমিটির দায়ীত্ব নিলেন খুরশিদ আলম ও গফুর ভাই, কোনো এক বাড়ীর ছাঁদে মিটিং হয়েছিলো। সমির ভাই এর মাধ্যমে জানতে পারি, আমার নাম রাখা হয়েছে সদস্যে। হাসান সাহেব, আলতাব ভাই, হবি ভাই সহ অনেকেই ছিলেন। পুরো কমিটির নাম আজও জানা হয় নাই।
১৯৮১পরে যুবলীগ গঠন করা হয়েছিল সিরাজ ও রবির মাধ্যমে। ছাত্রলীগ গঠিত হয়ে ছিলো ওবায়েদ,হুমায়ুন, আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ। ১৯৯১ পরে কমিটি গঠিত হয় মনির আহম্মেদ ভুইয়া ও শরিফ আহম্মেদের মাধ্যমে, আমাকে সাধারণ সম্পাদক করার প্রস্তাব ছিলো, বাকশাল আওয়ামীলীগের সাথে ঐক্য হওয়াতে পদ ছার দিতে হয়। ৯৫ আলহাজ্ব মোঃ সাদেক খান এমপি ও মজিবুর রহমান কমিটির দায়ীত্ব গ্রহন করেন। ৯৬ তে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসেন। সাদেক খান দায়ীত্ব নেওয়ার আগে ছয় হাজার ভোট কভার করতে পারিনি। একারো হাজার ভোট সাদেক খানের জয় ছিলো আওয়ামীলীগের ইতিহাস। জনতার মঞ্চের ইতিহাস থেকে মোহাম্মদপুর থানার সভাপতি, নগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছিল। বর্তমান সহসভাপতি। মেয়র হানিফের যোগ্য উত্তরসুরী বলা হয় সাদেক খান কে। কমিটি বানিজ্যের ইতিহাস নাই।
ঢাকাকে, ঢাকার নেতৃত্ব ছাড়া নিয়ন্ত্রণহীন মনে করেন ঢাকা বাসী। মাটির সাথে সম্পর্কহীন নেতৃত্ব কখনো বিকশিত হয় না। মিরপুরের হারুন মোল্লা, ঢাকার হানিফ, নারায়ণগঞ্জের চুনখা, চট্টগ্রামের মহিউদ্দিনের ইতিহাস আওয়ামীলীগ অস্বীকার করতে পারবেন না। ভোটের হিসেবে একেএম রহমতুল্লাহ, হাজী সেলিমের মতো নেতাদের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিলো। সাদেক খান ছিলো চমক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণতায় আজকের আওয়ামীলীগ, রক্ষার দায়ীত্ব ও নিতে হবে, বিচক্ষণতার মাধ্যমে। চাঁদাবাজি ও কমিটি বানিজ্যের ইতিহাস মুক্ত রাখতে চাইলে।
লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব, রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত সভাপতি ও খাস খবর বাংলাদেশ পত্রিকার সম্মানিত উপদেষ্টা মন্ডলী জনাব রবিউল আলম।
শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102