সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ১২:৪৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
মন খুলে দে,ও তুই হেলা করিস না, গোপালগঞ্জে যাবরে ভাই মোটরসাইকেল নিয়া ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে মান্নান হোসেন শাহীন সভাপতি, শেখ মোঃ জহিরুল ইসলাম অপু সাধারণ সম্পাদক ৩২ নং ওয়ার্ডে মোঃ বেলাল আহমেদ সভাপতি, মোঃ আবুল বাশার সাধারণ সম্পাদক ৩১ নং ওয়ার্ডে শহীদ আলী সভাপতি, সাজেদুল হক খান রনি সাধারণ সম্পাদক গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে শিগগিরই আর একটি গণঅভ্যুত্থান হবে: আমান উল্লাহ আমান শৈলকূপ উপজেলার ১১ নং আবাইপুর ইউনিয়নের ঢাকায় অবস্থানকারী দের নিয়ে গঠিত হলো লিজেন্ড এগারো নামে একটি ক্লাব বধ্যভূমি, একটি বটগাছ ও একজন রবিউল প্রানি সম্পদ মন্ত্রনালয় ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশন কোন পথে কোরবানির আয়োজনে ? বৃষ্টির দিনেও রান্না করা খাবার নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে রাজধানী মোহান্মদপুর ক্লাব সাধারণ সম্পাদক পদে সকলের পছন্দ হাফেজ মাওলানা মোঃ ইসমাইল হোসেন

পুলিশ,আমলা,নেতার হিসাব শুরু,উন্নয়ন উকি মারছে। নৌকার ভোট চাইতে হয় না, সন্ত্রাসীরা কি ভাবছে ?

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৫৮ দেখা হয়েছে

জনাব রবিউল আলমঃ পুলিশ মাদক গ্রহন করে, বিক্রি করে, বিক্রয় কারীকে সহায়তা করে , প্রশ্নগুলো সমাজের দীর্ঘকালের। উত্তর পাওয়া যায় নাই কোনো সরকারের কাছ থেকে। অবৈধ সরকার থাকলে পুলিশের প্রয়োজনীয়তা অস্বীকার করতে পারেন নাই বলে। হ্মমতার অবৈধ আয়ের জন্য আমলাদের মনোরঞ্জন করতে হয়েছে মন্ত্রীদের বলে। সন্ত্রাসী ভাড়ার দোকান খুলেছিলেন রাজনীতিকে পাকাকরণের জন্য বলে। কতশত আজব কারখানা দেখতে হয়েছিলো এ দেশের জনগণকে ৭৫ এর পরে। ধর্ষণ ও ধর্ষকের বিচার নাই, নারীর নিরাপত্তা নাই, মাদ্রাসায় আলেম আছে, বলৎকারের হিসাব নাই। দেশে ডাক্তার আছে, সাটিফিকেটের প্রয়োজন নাই। ল্যাব আছে, কমিশন আছে রোগীর রিপোর্টের হিসাব নাই। আজব একটি দেশের দায়ীত্ব জনগণ শেখ হাসিনার উপর ন্যাস্ত করেছিলেন, রাষ্ট্রকে পরিচালনার জন্য, দীর্ঘ সময় দিশেছেন। শেখ হাসিনার ইচ্ছার প্রতিফলন উন্নয়নের রূপে দেখেই বাঙালি মনে আশা আকাঙ্ক্ষা সৃষ্টি হয়েছে। বিশ্বের কাছে বাঙালী জাতি, ভাষা, সংস্কৃতি ইতিহাস ঐতিহ্যের প্রতিফলন ঘটেছে। আজ আমরা বলতেই পারি, শেখ হাসিনার সরকার বার বার দরকার। আর একবার শেখ হাসিনার সরকারকে হ্মমতায় আনতে পারলে, আল্লাপাক তার পুর্ণাঙ্গ সময় শাসন পরিচালনার জন্য হায়াৎদান করলে। বাংলাদেশ হবে দুর্নীতি, মাদক মুক্ত ইনশাআল্লাহ। জনগণের বিশ্বাস ও সমর্থনই সরকার প্রশাসনকে শাসন করার শক্তিযোগায়। শেখ হাসিনা সেই শক্তিতে বলিয়ান। ভাবনার কি আছে। জাতির জনককে সমর্থনের ফলে বাংলার স্বাধীনতা, আপনাদের হাতের মুঠোয়। শেখ হাসিনাকে সমর্থনের জন্য উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক মুক্তি ভোগ করছেন। দ্বিতীয় বার দুর্নীতি মুক্ত করার জন্য নেতা থেকে শুরু, আমলা ও পুলিশকে জবাব দিহিতায় আনা হয়েছে। মাদকের ডোপ পরিহ্মায় ১০ জন চাকরিচ্যুত ৪৩ জনের বিরুদ্ধে ভিবাগীয় মামলা, একটি বার্তা দেওয়া হয়েছে পুলিশকে। পুলিশরাও বুঝতে পারছেন, দায়মুক্ত হতে চাচ্ছেন, গুটিকয়েক পুলিশে জন্য, তাদের এত অর্জন জাতির কাছে প্রশ্নবোদক হতে পারেনা। ৭৫ হত্যাকাণ্ডে দায় আমার দেশের সেনাবাহিনী বহন করতে পারেনা, মজিব হত্যার বিচারের মাধ্যমে কলংক মুক্ত করা হয়েছে। আমলাদের টাকা পাচারের হিসাব ইতিমধ্যে আদালত তলব করেছে। বিএনপি নেতাদের আগাম জামিন মঞ্জুর করেছে।মুক্ত আদালত নিয়ে অনেক প্রশ্ন তুলা হয় খালেদা জিয়ার এতিমের টাকা চুরির জন্য সাজা হওয়াতে। শেখ হাসিনা থোড়াই কেয়ার করে, নিজ দলে এমপি জেলখানায় রেখে পুলিশ, আমলা, মাদক ব্যবসায়ী, টেণ্ডারবাজ, বালিশ, নালিশ অট্রালিকা সরকারের ও এতিমের টাকা চুরি বিচার হবে না। তা কি করে সম্বব। জনগণ চাইলে শেখ হাসিনার পহ্মে সবই সম্বব। কাওন্সিলর চেয়ারম্যান মেম্বাররা সাবধান হয়ে যান।

লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব ও রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামলী লীগের সভাপতি জনাব রবিউল আলম।

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102