May 19, 2024, 6:30 pm
শিরোনামঃ
শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মৎস্যজীবী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা বিচার ব্যবস্তার সুচনার ইতিহাস জানিনা, বিতর্কের শেষ কোথায় ? বুঝতে পারছি না বঙ্গ কণ্যার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও বাংলার মাটি কে বুকে ধারন, ইতিহাসের অংশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি পাঠাগারের কমিটি গঠন জহির সভাপতি ও লিটন সাধারণ সম্পাদক গাজায় নিজেদের গোলার আঘাতে পাঁচ ইসরায়েলি সেনা নিহত তালের শাঁস খেলে যেসব উপকার হয় ঢাকা শহরে কোনো ব্যাটারিচালিত রিকশা চলবে না: ওবায়দুল কাদের বিশ্বাস পুনর্নির্মাণের জন্য আমি বাংলাদেশ সফর করছি: ডোনাল্ড লু ভারতবর্ষে হিন্দু মুসলমানের রাজনীতি হয়,মহাত্মা গান্ধী সকল ধর্মের রাজনীতি নাই গুলিস্তান-মিরপুরের কাপড় পাকিস্তানের বলে বিক্রি করেন তনি!

নৌকা যার, আমরা তার, আওয়ামী লীগের এই শ্লোগান মানতে হবে

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Monday, September 18, 2023
  • 79 Time View
নৌকা আছে যেখানে,আমরা আছি সেখানে,জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু, জয় হউক বাংলার মেহনতী মানুষের। প্রতিটা আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীদের মুখে, এই শ্লোগান সু মধুর মতো মনে হয়। দেশের জন্য, জাতির জন্য এই শ্লোগানের মাধ্যমে আত্নত্যাগের ঘোষণা দেওয়া হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান কে স্মরণ করা হয়।তাকে অনুস্মরণ করা মজিব আদর্শে বিশ্বাসীদের দায়ীত্ব ও কর্তব্য মনে করি। নৌকা একটি চিহ্নিত মার্কা বলতে পারেন। দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতিক বলতে পারেন। এই নৌকার ভোটের জন্য সামাজিক ঐক্য গড়ে তুলার অঙ্গিকার থেকে দলের পদ পদবীর বন্টন করা হয়।
সকল রাজনৈতিক দল একই নিয়মে কমিটি করা হয়। দলিয় শৃঙ্খলা ও দায়ীত্ব কর্তব্য পালনে একনিষ্ঠ হতে পারলে, সেই দল রাষ্ট্র ক্ষমতার মাধ্যমে জনগণের দাবী পুরণে সক্ষম। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ হাসিনা এই বিষয়ে শতভাগ সফল। একটি আঙুলের ঈশারায়, শৃঙ্খলতার জন্য যথেষ্ট। তবু কিছু প্রশ্ন তোলা হয়।নৌকা ছাড়া ব্যাক্তিকে নিয়ে বিতলামি করা হয়। ভাইএর নামে শ্লোগান দেওয়া হয়। অমুক ভাই তমুক ভাইএর জন্য নৌকা চাওয়া হয়। নৌকা চাওয়ার বস্তু নয়, নৌকা অর্জন করতে হয়। দেশ ও জাতির জন্য ত্যাগের বাহন নৌকা। সোহরাওয়ার্দীর নৌকা, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার মার্কা নৌকা, হক-ভাসানীর নৌকা, জাতির পিতার নৌকা কোনো তামাশা কারীর জন্য হতে পারে না। নৌকার ঐক্য ছাড়া বাঙালির মুক্তি, দেশের উন্নয়ন, বহিঃবিশ্বে জাতির সম্মানের, অহংকারে স্থানটা পরিপূর্ণ হতে পারে না। বঙ্গবন্ধু হত্যার পরের ইতিহাস থেকে আমাদেরকে অনেক বিষয় শিখতে হয়েছে, মুক্তিযুদ্ধের অর্জন কে বিষর্জন দিতে হয়েছে। দাসত্ব গ্রহন করতে হয়েছিলো পশ্চিমাদের। নৌকা ছাড়া বিতলামি, ভাইএর নামে ইতরামি করলে, গোলামির জিঞ্জির মুক্ত হতে পারবে না, বাঙালি জাতি। দলের ভিতরে দল, ঘরের ভিতরে ঘর যারা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিভাজনে অভস্ত্য, তাদের কন্টেকটারী, ইজারাদারী, চাদাবাজি, সন্ত্রাসী ও ক্যাসিনোর ব্যবসা নিয়ে বুড়িগঙ্গায় নামতে হবে। নৌকা হবে বাংলার মেহনতী মানুষের। নৌকা বাংলার স্বাধীনতা ও সার্বভ্যোমত্বের প্রতিক। নৌকা ডিজিটাল বাংলাদেশ উপহার দিয়েছে, নৌকা স্মার্ট বাংলাদেশের অঙ্গিকার করেছে। স্মার্ট বাংলাদেশ পেতে হলে, জাতি কে স্মার্ট হতে হবে। পৃথিবীর কোনো সরকার একক ক্ষমতায় বিশ্ব জয় করতে পারেনি, জনগণের সহায়তা ছাড়া। দলিয় ঐক্য ছাড়া।
দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গকারী তারেক রহমানের রাজনীতি থেকে বিএনপির নেতারা অনেক বিষয় শিখেছে। আওয়ামীলীগের নেতারা ইচ্ছে করলেও সেই পথে হাটতে পারবে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা, নিজের সন্তানকে কুপরামর্শের রাজনীতি থেকে বিরত রেখেছেন।নিজের দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের ক্ষমা করবেন কীভাবে ? সময় থাকতে নৌকা নিয়ে বিতলামি, ভাইএর নামে ইতরামি ছাড়ুন। জয় বাংলা শ্লোগান অন্তরে ধারণ করুন। বাংলার মেহনতী মানুষের নৌকা পাইতে হলে মজিব আদর্শ গড়ে উঠুন।
লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব, রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত সভাপতি ও খাস খবর বাংলাদেশ পত্রিকার সম্মানিত উপদেষ্টা মন্ডলী জনাব রবিউল আলম।
শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102