শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৫:১৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
শৈলকূপ উপজেলার ১১ নং আবাইপুর ইউনিয়নের ঢাকায় অবস্থানকারী দের নিয়ে গঠিত হলো লিজেন্ড এগারো নামে একটি ক্লাব বধ্যভূমি, একটি বটগাছ ও একজন রবিউল প্রানি সম্পদ মন্ত্রনালয় ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশন কোন পথে কোরবানির আয়োজনে ? বৃষ্টির দিনেও রান্না করা খাবার নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে রাজধানী মোহান্মদপুর ক্লাব সাধারণ সম্পাদক পদে সকলের পছন্দ হাফেজ মাওলানা মোঃ ইসমাইল হোসেন মানি ইজ নো প্রবল্যামের রাজনীতির জনক জিয়া, বঙ্গবন্ধু ছিলেন রাজনৈতিক কৃপণতার জনক অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে কারিগরি শিক্ষা: শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল ইভিএম পেশীশক্তিকে প্রতিরোধে সহায়ক, দিনের ভোট দিনের জন্য মুলমন্ত্র ৩৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় শেখ মোঃ জহিরুল ইসলাম অপু বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা এবং ঔষধ বিতরণের ব্যবস্হা করেছে বাংলাদেশ ডেন্টাল হেলথ সোসাইটি কেন্দ্রীয় কমিটির

ধর্ষণ ও ধর্ষকের সংজ্ঞা কি জান্তে স্বামী স্ত্রীকে আদালতের দারস্থ করালো এনজিওর মাধ্যমে

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ১২৩ দেখা হয়েছে
রবিউল আলমঃ সৃষ্টির সৌন্দর্য নারী, নারীকে এ সমাজ যখন ভোগের পন্য বানাতে ব্যস্ত।নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, কৃতদাশ থেকেই শুরু। নারীকে নিয়ে গবেষনা শেষ কোথায়, আজও চলছে কতটুকু অধিকার দেওয়া যায়।
নারীর স্বাধীনতাকে নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠেছে, সমাধানের পথ আবিস্কার হয় নাই। স্বামী ও স্ত্রীর অধিকার কতটুকু এর জবাব চাইতেও এখন আদালতে আসতে হয়েছে নারী স্বাধীনতা বিশ্বাসীদের। ধর্ষণের সংজ্ঞা কি ? স্বামীর সাথে স্ত্রীর সম্পর্কের কতটুকু অতিক্রম করলে ধর্ষণের তালিকায় উঠতে পারে, প্রশ্ন উঠেছে।
মাদ্রাসার শিশু বলৎকারীকে ধর্ষক বলা হবে কি না ? একজন শিশু ধর্ষণকারীকে সমাজ ও বিচারিক আদালত কি ভাবে গ্রহন করবে ? প্রাপ্তবয়স্ক নারী পুরুষের সম্পর্ক ও জোরপুর্বক সম্পর্ক কে ধর্ষণের আওতায় কিভাবে আনবে ? নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর নারী নির্যাতনকে পৃথিবীর ইতিহাসে জঘন্য তম ঘটনা বলা হলেও ধর্ষণের নাম দেওয়া যায় কিনা, অনেক প্রশ্ন উৎথাপিত হয়েছে। যদিও পুলিশ ধর্ষণের মামলারুজু করেছে। আমার ভাবনার বিষয় ধর্ষণ কি রাজনৈতিক হয়ে গেলো ধর্ষকদের কাছে ? যদি তা না হয়, তবে একটি আলোচিত ধর্ষণের ঘটনা ঘটার পরে সরকার পতনে শ্লোগান কেনো হয় ? অপরাধ অপরাধী চিহ্নিত হওয়ার পরেও ধর্ষকের পুস্তলিকা দাহ না করে সরকার প্রধানের পুস্তলিকা দাহ করা হয় ? যার মাধ্যমে আমরা অপরাধীর বিচার প্রার্থনা করি, তাকে বিচারের কাঠগড়ায় দ্বার করানো হয় ?
রাজনীতির প্রতিবাদের ভাষা যদি ধর্ষণ দিয়ে ধর্ষকরা শুরু করেন, তবে শেষ করবেন কিসের মাধ্যমে ? আদালত স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ক থেকে ধর্ষণকে আলাদা করতে পালবেন। তবে সেই সম্পর্ক কতটুকু সামাজিক ভাবে গ্রহন করা হবে, আইন কি ভাবে বাস্তবায়ন হবে ? এবং করবে, প্রশ্নতো অনেক। উত্তর কার কাছে আছে ? আমরা ধর্ষিতার পাশে না দ্বারিয়ে রাস্তায় গাড়ী ভাঙতে পছন্দ করি। সব দেখে মনে হয় ধর্ষণ আর ধর্ষক এখন রাজনৈতিক হয়ে পরেছে। প্রকৃত ধর্ষিতাদের হবে কি ?
লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব ও রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামলী লীগের সভাপতি জনাব রবিউল আলম।

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102