July 17, 2024, 6:34 pm
শিরোনামঃ
অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফুফুর বাড়ি বেড়াতে এসে নদীতে ডুবে সিয়াম নামে এক যুবকের মৃত্যু গায়েবানা জানাজার পরই পল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি-সমমনা দলের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক দল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে কোটা আন্দোলনকে ব্যবহার করছে: ডিবিপ্রধান হারুন-অর-রশিদ ছারছীনা দরবার শরীফের পীর সাহেবের ইন্তেকাল পবিত্র আশুরা সমগ্র মুসলিম উম্মা’র জন্য এক তাৎপর্যময় ও শোকের দিনঃ: মোঃ সাদেক খান রাজবাড়ীর পাংশায় সাংবাদকর্মীদের সঙ্গে মত বিনিময় সভা করলেন নবাগত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করে গণতন্ত্রকেই বন্দী করা হয়েছিলঃ মোঃ সাদেক খান কোটা প্রথা বা পদ্ধতি বিশ্বে নতুন নাঃ আঃ রহমান শাহ্

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি নির্বাচনেও যাবে না বিএনপি

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Monday, July 8, 2024
  • 26 Time View

ডেস্ক রিপোর্ট খাস খবর বাংলাদেশঃ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জনের পর অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও অংশগ্রহণ করেনি রাজপথের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। এরই মধ্যে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন করার প্রস্তুতি শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আগামী ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আয়োজন চলছে। সেক্ষেত্রে আগামী বছরের জানুয়ারিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে। নির্বাচন কমিশন সূত্রে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে। তবে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও অংশ নেবে না বিএনপি।

এ বিষয়ে দলটির দায়িত্বশীল নেতারা জানান, ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে দলটির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী পরিষদ বা স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে আর কোনো নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী কোনো নির্বাচনে অংশ নেয়নি বিএনপি। একই সিদ্ধান্তের আলোকে আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও অংশ নেবে না বিএনপি।

এবিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব ও দলটির মুখপাত্র রুহুল কবির রিজভী আহমেদ জানান, বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে না যাওয়ার বিষয়ে বিএনপির অতীতের নেওয়া সিদ্ধান্ত এখন পর্যন্ত বহাল রয়েছে। আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে যাওয়ার নতুন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নির্বাচন নিয়ে তেমন কোনো আগ্রহ কিংবা উত্তাপ নেই বিএনপিতে। নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে এখনো অটল বিএনপি। এই ইস্যুতে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনও বয়কট করে তারা। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও যায়নি। নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণের পর যারা দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে ভোট করেছেন, সবাইকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তাই আসন্ন ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে উল্লেখযোগ্য কোনো বিএনপি নেতার স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ারও সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কারণ দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করলে অতীতের মতোই দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। জানা যায়, সর্বশেষ ২০২০ সালের ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে ইভিএমে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে লড়াই হয়েছিল প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের প্রতীক নৌকা ও ধানের শীষের মধ্যে। ইসির কর্মকর্তারা বলছেন, সিটি করপোরেশন আইন অনুযায়ী মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্ববর্তী ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিধান রয়েছে। আর আইন অনুযায়ী করপোরেশনের প্রথম বৈঠক থেকে এর মেয়াদ গণনা শুরু হয়। এ ক্ষেত্রে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০২০ সালের ২ জুন। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয় ২০২০ সালের ৩ জুন। সেই হিসাবে ঢাকা উত্তর সিটির নির্বাচনি ক্ষণগণনা শুরু হবে চলতি বছরের ৪ ডিসেম্বর থেকে। আর দক্ষিণ সিটির ক্ষণগণনা শুরু হবে ৫ ডিসেম্বর। দুই সিটির মেয়াদ শেষ হবে আগামী বছরের ১ ও ২ জুন। দিন গণনার শুরুর দিন থেকে যে কোনো দিন ভোট গ্রহণ করতে পারবে ইসি।

শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102