বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১১:১১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
২৬ শর্তে বিএনপিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ থেকে সঠিক রাজনৈতিক নির্দেশনা নাই অবিভক্ত ঢাকার নির্বাচিত মেয়র মোহাম্মদ হানিফ এর মৃত্যু বার্ষিকীতে ব্যথিত হয়েছি বাসাপ এর জমকালো ৩৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ব্রাজিলের ৪০০ জার্সি বিতরণ করলেন ঝাল মুড়ি বিক্রেতা মোহাম্মদ জাবেদ বিএনপির সঙ্গে জোটের প্রশ্নই আসে না: রওশন এরশাদ মেয়র হানিফকে হারিয়ে, ঢাকা এখন রাজনৈতিক অন্ধকারে বিশ্বকাপে নতুন ইতিহাস গড়লেন মেসি সিমিন হোসেন রিমি আ.লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মনোনীত হওয়ায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন আবু সাঈদ তালুকদার রিচার্লিসনের জোড়া গোল, দাপুটে জয় ব্রাজিলের

ঝিনাইদহ জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাংবাদিকদের সাথে এমপি আব্দুল হাইয়ের মতবিনিময়

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম শনিবার, ২৩ জুলাই, ২০২২
  • ৪০ দেখা হয়েছে

মোঃ ইব্রাহিম হোসেনঃ জাতীয় সংসদ সদস্য ও ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই এমপি মহোদয় এর সাথে ঝিনাইদহ জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাংবাদিকদের এক মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২২ জুলাই ২০২২ রোজ শুক্রবার বাদমাগরিব ইউনিটির অস্থায়ী কার্যালয় শহরের দশতলা বিল্ডিং এর চতুর্থ তলায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তি যোদ্ধা আব্দুল হাই। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ।

এসময় জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি এম এ কবীরের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক শাহিদুর রহমান সন্টুর পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম আনোয়ার হোসেন, দপ্তর সম্পাদক জাহিদ হাসান, অর্থ সম্পাদক সবুজ মিয়া, প্রচার সম্পাদক এসএম রবি, সংবাদপত্র বিষয়ক সম্পাদক মুক্তার হোসেন, সিনিয়র সাংবাদিক জিল্লুর রহমান, পল্লব মিয়া, সদস্য মোঃ ইব্রাহিম হোসেন, এইচএম ইমরান , ওমর আলী সোহাগ , সাইফুল ইসলাম, ইমদাদুল হক, লালন মন্ডল, সাহিদুজ্জামান বাবু, রাজিব হাসান টিপু  প্রমুখ।

মত বিনিময়কালে আব্দুল হাই এম.পি বলেন, সাংবাদিকরা হলো জাতির বিবেক। আমি বিগত সময়ে বিভিন্নভাবে সাংবাদিক ভাইদের সহযোগিতা পেয়েছি। আগামীর পথ চলায়ও আমি ঝিনাইদহের সকল সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করছি। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের পাশে সব সময় থাকার আশ্বাস দেন। এসময় ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ তার সাথে উপস্থিত ছিলেন।

আব্দুল হাই ঝিনাইদহ-১ শৈলকুপা আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য ও ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী। তিনি ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার ২নং মির্জাপুর ইউনিয়নের মহম্মদপুর গ্রামের ফয়জুদ্দীন মোল্লার সুযোগ্য সন্তান। তিনি ১৯৬৪ সালে শৈলকুপার বসন্তপুর হাইস্কুলে ৮ম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন এবং স্কুল কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৬৭ সালে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়ে ঝিনাইদহ সরকারি কেসি কলেজে ভর্তি হন। এ সময় তিনি কেসি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৬৮ সালে মহকুমা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও ১৯৬৯ সালে সরকারি কেসি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হন। একই বছর তিনি বৃহত্তর যশোর জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি নির্বাচিত হন।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হলে তিনি ঝিনাইদহে স্বাধীন বাংলার প্রথম পতাকা উত্তোলন করেন। দেশ স্বাধীনের পর তিনি ঝিনাইদহ যুবলীগের আহ্বায়ক ও ১৯৭৩ সালে যুবলীগের মহকুমা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৭ সালে তিনি ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ১৯৯৮ সালে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০৫ সালে আব্দুল হাই ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০০১ সালের অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঝিনাইদহ-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দ্বিতীবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১২ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে তৃতীয় বারের মতো বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।সর্বশেষ ২০১৮ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে টানা চতুর্থ মেয়াদে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে অত্যন্ত দক্ষতা ও সুনামের সাথে জেলা ও শৈলকুপাবাসির জন্য নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন।

মতবিনিময় সভায় জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তথা ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের জন্য আব্দুল হাই একজন বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ ও অভিভাবক। তার নেতৃত্বে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগ সুশীতল ছায়াতলে রাজনীতি করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, একটি মহল তার বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লেগেছে এবং স্থানীয় একজন সাংবাদিককে প্রভাবিত করে তার কাছে ভুল তথ্য দিয়ে তাদের মন গড়া সংবাদ পরিবেশন করিয়ে তার দীর্ঘ দিনের অর্জিত মর্যাদাকে ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের জন্য আব্দুল হাই সাহেব জীবন বাজি রেখেছে, জেল জরিমানা সহ মারধর পর্যন্ত খেয়েছে এবং বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বলেন, মানুষ মাত্রই ভুল করে। তবে এমন ভুল সে করিনি যার জন্য তার সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য উঠে পড়ে লাগতে হবে। এসময় আব্দুল হাই এমপি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন এবং তার বিরুদ্ধে করা প্রতিবেদনের পেছনের কারণ ও সরকারের উন্নয়নের কথা তুলে ধরার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানান তিনি।

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102