March 31, 2023, 7:24 pm
শিরোনামঃ
নিত্যপণ্যের মুল্য তালিকা, নাকি জনগণের সাথে নিত্য মস্করা বিশ্ব চায় শেখ হাসিনার কর্মদক্ষতার কারিশমা জানতে, প্রথম আলো কী জানাতে চেয়েছিলো প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে আধুনিক ও স্মার্ট হবে বাংলাদেশঃ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জাতীয় নির্বাচনে চতুর্থ মেয়াদেও জয়ী হবেন শেখ হাসিনা: ব্লুমবার্গ ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধে, আন্তর্জাতিক রাজনীতি থেকে জী হুজুরের যবনিকা রাজধানী মোহাম্মদপুরে এতিম শিশুদের ইফতার করালেন ডেইজি সারওয়ার ২০ বোতল ফেনসিডিলসহ ডিবির হাতে আটক হয়েছে বেলাল হোসেন মোহাম্মদপুরে প্রতিদিন ইফতার করাচ্ছেন ছাত্রলীগ নেতা নাঈমুল হাসান রাসেল স্বাধীনতা দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আদাবর থানা আওয়ামী যুবলীগে শ্রদ্ধা মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস আজ

খাল উদ্ধার অভিযানে কাউন্সিলররা দখল মুক্ত হবেন ?

Reporter Name
  • Update Time : Wednesday, January 6, 2021
  • 204 Time View

জনাব রবিউল আলমঃ রায়ের বাজার, মোহাম্মদপুর, হাজারীবাগ,মধু বাজারের খাল এখন রাস্তায় পরিনত হয়েছে। খালের আয়তন ৬০ থেকে ১২০ ফুট হলেও সরকারের ভাগে ৩০ থেকে ৫০ ফুট রাস্তা পরেছে। বাকী অংশ ভাগবাটোরা হয়ে গেছে। পুলপার বটতলা থেকে ঋষি পাড়া মধু বাজার হয়ে জিগাতলার খালের অস্তিত্বই নাই। জাফরাবাদ পর্যন্ত একটি ছোট্ট রাস্তা পেয়েছে সরকার, বটতলা থেকে বুদ্ধিজীবী হয়ে খালের অংশ খুজে পাওয়া যাচ্ছে না, বটতলা থেকে রহিম বেপাড়ী ঘাটের খালটি কোথায় ? পাওয়া যাচ্ছে না। খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বুদ্ধিজীবীদের রক্তে ভেজা বটগাছের সামনে বিহৎ পুশকুনি। বটতলা থেকে রায়ের বাজার হয়ে বছিলার নদী সংযোগস্থল রাস্তার অর্ধেক অর্ধেক ভাগ হয়েছে সরকার ও দখলদারদের মাঝে। হাজারীবাগ থেকে শিকদার মেডিকেল হয়ে বুড়িগঙ্গায় সংযোগ খালের কিছু অংশ ওয়াসার অধিনে, কিছু অংশে ওয়ার্ড ইউনিট। আওয়ামীলীগের অফিস করা হয়েছে। নিমতলা ঘাটের সংযোগ খালটি হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে। ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরদের অধিনে খালের জমিতে কত বস্তি ও অবৈধ দখল আছে, তার কোনো সঠিক হিসাব নাই। ওয়াসা ও কর্পোরেশনের বিরোধ মিমাংসায় নগরবাসীর ও সরকার স্বঃস্থিতে। যানজট ও জ্বলজট মুক্ত হওয়া একটি সম্ভাবণা জাগ্রত হয়েছে। দুই মেয়রের আন্তরিকতা কে ঢাকাবাসী সাধুবাদ জানিয়েছেন, সরকারের সহায়তার কোনো প্রতিবন্দকতা নাই। কত বড় নেতা, কত হ্মমতা দেখার সময় নাই। ব্যাক্তিগত জমি, উত্তরের মেয়রের ব্যাক্তিগত টাকা দিয়েও জনগণের রাস্তা উন্মুক্ত করা হয়েছে। এই বিষয়টাকে ইতিহাসের অংশই আমি মনে করি, সরকার বিরোধীরা কী মনে করেন, জানতেও চাইনা বুঝতেও চাইনা। আমার সরকারের, আমার দলের হিতাকাঙ্ক্ষী কাউন্সিলরদের সহায়তা চাই। আপনাদের দখলে যদি কোনো খালের জমি থাকে, তবে ছেড়ে দিন। আপনার এলাকায়, আপনার বাড়ীর পাশে খালের জমি দখল করে যদি কেহ স্থাপনা নির্মাণ করে থাকেন, তবে চিহ্নিত করুন। একা না পারলে, জানা না থাকলে এলাকাবাসী সহায়তা গ্রহন করুন। আপনাদের স্ব স্ব রাস্তা ঘাট অবৈধ দখল ও মাদক মুক্ত করার কাজে এগিয়ে আসুন। শেখ হাসিনার সরকার এই দেশের ঝামেলা মুক্ত করেই ছারবেন। দুই মেয়রের আন্তরিকতার অভাব নাই। প্রশাসনের ছাড় নাই। বাংলাদেশকে স্বপ্ন পুরি দেখতে চান, ফুটপাতের চাঁদাবাজির কথা ভুইলা যান। ভুইলা যান এরশাদের কমিশনার না আপনারা। শেখ হাসিনার কাউন্সিলর মনে রাখবেন। যার এমপিরাও জেলে থাকে। সুযোগ বার বার আসেনা। মাননীয় মেয়ররা ইচ্ছে করলে, কাউন্সিলরদের দখলে থাকা অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত করার জন্য জনসম্মুখে লিখিত আবেদন চাইতে পারেন। মিডিয়া, সুশীল সমাজ ও রাজনৈতিক সহায়তাকে কাজে লাগাতে পারেন।

লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব ও রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামলী লীগের সভাপতি জনাব রবিউল আলম।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102