July 17, 2024, 7:37 pm
শিরোনামঃ
অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফুফুর বাড়ি বেড়াতে এসে নদীতে ডুবে সিয়াম নামে এক যুবকের মৃত্যু গায়েবানা জানাজার পরই পল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি-সমমনা দলের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক দল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে কোটা আন্দোলনকে ব্যবহার করছে: ডিবিপ্রধান হারুন-অর-রশিদ ছারছীনা দরবার শরীফের পীর সাহেবের ইন্তেকাল পবিত্র আশুরা সমগ্র মুসলিম উম্মা’র জন্য এক তাৎপর্যময় ও শোকের দিনঃ: মোঃ সাদেক খান রাজবাড়ীর পাংশায় সাংবাদকর্মীদের সঙ্গে মত বিনিময় সভা করলেন নবাগত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করে গণতন্ত্রকেই বন্দী করা হয়েছিলঃ মোঃ সাদেক খান কোটা প্রথা বা পদ্ধতি বিশ্বে নতুন নাঃ আঃ রহমান শাহ্

কোরবানীর পশুর ২০%দাম বাড়ানোর খোঁড়া যুক্তি পশু খাদ্যের উপর

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Friday, May 31, 2024
  • 39 Time View

যুক্তি থেকে মুক্তি পাবো কবে ?প্রানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের যুক্তি, এককোটি উনত্রিশ লাখ পশু আছে বাংলাদেশে, কোরবানি হবে এককোটি পাঁচ থেকে দশ লাখ। বাকী পশু নিয়ে কৃষক বিপাকে। ফার্মার এসোসিয়েশনের বলছে মজুদ আছে এককোটি পঁচিশ লাখ। তাদের যুক্তি বিদেশী পশু আসলে নাকি দেশের সর্বনাশ। না আসলে কোরবানী দাতার সর্বনাশের পক্ষে কোনো যুক্তি নাই। বাংলাদেশের কোরবানীর পশুর চাহিদা গরু মহিষ ৫৫ থেকে ৬০ লাখ, ছাগল ভেড়া দুম্বা উট মিলিয়ে ৪৫/৫০ লাখ, কিছুটা কম বেশী হয়, দেশের অর্থনীতির উপর নির্ভরতা থেকে। ফার্মার এসোসিয়েশন সব গরু লালন পালন করে না। কিছু ফার্মার গঠিত হয়েছে ঢাকার আশপাশে, কোরবানীর পশুর কৃত্রিম অভাব সৃষ্টি করার লক্ষ্যে।
দাম কম হলে ওরা টাকাভর্তি বেগ নিয়ে গরু কিনে ফার্মে রাখে, বাজারে গরুর অভাব হলে গরু ছাড়ে। কিছু ইউটিবার কে গরুর হাটের গরু বিক্রি হচ্ছে না বলার জন্য ভাড়া করে রাখে, ফার্মাদের গরু কিনা হয়ে গেলে, গরু নিয়ে টানাটানির চিত্র প্রচারের দায়ীত্ব পালন করে। সরকার কে বিব্রত করা, প্রানি সম্পদ মন্ত্রনালয় থেকে সুবিধা আদায় করা, কোরবানীর বাজার থেকে পশু কিনে নিয়ে অভাব সৃষ্টি করে কোরবানী দাতাদের বিপাকে ফেলা।মোট কথা কোরবানীর আগের যুক্তি অতিরিক্ত পশুখাদ্যের দামের জন্য গতবারের চাইতে ২০% বেশী দাম দিতে হবে। কোরবানীর পরে অতিরিক্ত পশুর চাপে মাথায় হাত দিতে হচ্ছে সাধারণ কৃষক কে, মুনাফাখোরা থাকে যুক্তির অন্তরালে। ভারত মিয়ানমার থেকে কোনোকালেই চোরাই পথে পশু আসা বন্ধ করা যায় নাই।
এই পাচারকারী দল নেতার অন্তরালে ফার্মারদের ভুমিকা লুকাতে পারবেন না। তাদের পালিত কিছু দালাল বর্ডা এলাকায় রিজার্ভ রাখা হয়, সুযোগ বুঁজে পশু পাচারকারী হয়ে উঠে।প্রতিদিন ধুয়া উঠানো হয় পশু পাচার নিয়ে। স্বরাষ্ট্র পররাষ্ট্র,প্রানি সম্পদ মন্ত্রনালয় কে অস্তির করে রাখেন ফার্মারা।বানিজ্য শিল্প মন্ত্রনালয় কে জিম্মি করে রেখেছেন কোরবানীর পশুর চামড়া পাচারের ধুয়া তুলে ট্যানারী শিল্পের মালিকরা। সরকারের কাছে থেকে টাকা নেওয়ার আগের যুক্তি টাকা না দিলে কোরবানীর পশুর চামড়া রক্ষা করতে পারবো না। টাকা নেওয়ার পরের যুক্তি আমরা লবন দেওয়া চামড়া ছাড়া কিনবো না, তবে কেনো বানিজ্য মন্ত্রনালয় থেকে লবনের সুবিধা দেওয়া হয় চামরা শিল্পকে ? কাঁচা চামড়ার আড়ৎদার মাদ্রাসা, এতিমখানায় সরকারের লবনের সুবিধা দেওয়া হলে, একটি চামড়াও নষ্ট হবে না। কোরবানীর পশুর চামড়ার দাম নিয়ে যাতে বিতর্ক সৃষ্টি না হয়,এ কারণে বানিজ্য মন্ত্রনালয় কাঁচা চামড়ার আড়ৎদার ও মাংস ব্যবসায়ী সমিতি কে সভায় ডাকা হয় না।হয়তো নিজেদের ব্যর্থতা প্রকাশ হওয়ার ভয়ে। পাঁচ বিলিয়ন মার্কীন ডলার আয় করার লক্ষ্যমাত্র ছিলো চামড়া শিল্প কে আধুনিকায়ন করা।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মহাপরিকল্পনা কে ধুলিশ্বাস করে দিয়েছে শিল্পের মালিক, সরকারের আমলাতান্ত্রিক ব্যর্থতা,বিদেশীদের হীনমন্যতায়। আমার বিশ্বাস চীনকে ওয়াটার টিটম্যান প্ল্যান্টের কাজ দিয়ে বড় ভুল হয়েছে। চীন আমাদের কাঁচা চামড়ার বড় ক্রেতা,রপ্তানি বন্ধের ষড়যন্ত্রের অংশ হতে পারে। চামড়া শিল্প নগরীর বাহিরেরে আটটি ট্যানারী ইতিমধ্যে নিজস্ব ওয়াটার টিটম্যান প্ল্যান্ট করে নিয়েছে, তারা রপ্তানীর অনুমতিও পেয়েছে। আধুনিক চামড়া শিল্প নগরীর ট্যানারীগুলো এখনও সেই লক্ষ্য অর্জন করতে পারেনি, করতে দেওয়া হয়নি, বলতে পারেন,যেকারণে চামড়াকে আমরা দুর্দশা মুক্ত করতে পারছি না। চামড়া নিয়ে ভাবানার অবশান হবে কবে ? জানিনা। কোরবানীর পশুর সিন্ডিকেট মুক্ত করার পরিকল্পনা সরকার আছে কিনা ? বলতে পারবোনা। লেখতে হয় মনের খোরাক মিটাতে।

লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব, রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খাস খবর বাংলাদেশ পত্রিকার সম্মানিত উপদেষ্টা মন্ডলী জনাব রবিউল আলম।

শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102