May 19, 2024, 5:45 pm
শিরোনামঃ
শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মৎস্যজীবী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা বিচার ব্যবস্তার সুচনার ইতিহাস জানিনা, বিতর্কের শেষ কোথায় ? বুঝতে পারছি না বঙ্গ কণ্যার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও বাংলার মাটি কে বুকে ধারন, ইতিহাসের অংশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি পাঠাগারের কমিটি গঠন জহির সভাপতি ও লিটন সাধারণ সম্পাদক গাজায় নিজেদের গোলার আঘাতে পাঁচ ইসরায়েলি সেনা নিহত তালের শাঁস খেলে যেসব উপকার হয় ঢাকা শহরে কোনো ব্যাটারিচালিত রিকশা চলবে না: ওবায়দুল কাদের বিশ্বাস পুনর্নির্মাণের জন্য আমি বাংলাদেশ সফর করছি: ডোনাল্ড লু ভারতবর্ষে হিন্দু মুসলমানের রাজনীতি হয়,মহাত্মা গান্ধী সকল ধর্মের রাজনীতি নাই গুলিস্তান-মিরপুরের কাপড় পাকিস্তানের বলে বিক্রি করেন তনি!

একটি নির্দেশে লাক্ষো মানুষের পুর্ণবাসন, একটি নির্দেশে কোটি মানুষের খাদ্যভাব পুরণ।মুজিব জন্মশতবার্ষিকীর স্বার্থকতা এখানেই

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট সময় : Monday, August 16, 2021
  • 152 Time View
জনাব রবিউল আলমঃ
জাতীয় শোক দিবশে মানব সেবার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রমান করেছেন ১৫-২১ আগস্ট শহিদের আত্নাও বাংলার গরিব দুঃখী মানুষের সেবা করতে পারে। খিচুড়ি বিরিয়ানি, তেহারীর নামে লাক্ষো গরু জবাই হতো। একদিন একবেলা গরিব মানুষকে খেতে হতো। খাওয়ার ব্যবস্থা করতে না পারলে নষ্ট হতো অনেক খাবার। সরকারের দেওয়া অনেক অর্থ সরকারের আমলা ও এলাকার চেয়ারম্যান মেম্বার, কাউন্সিলররা নিজের ইচ্ছে মতো বিতরন ও অর্থ আত্মসাৎ এর মহা উৎসবে মেতে উঠতো। গরিব আর গরিবী হটানোর ছিলো দুঃস্বাদ্ধ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি নির্দেশে লাক্ষো মানুষের পুর্ণবাসন হয়েছে। দুই শতক জমি স্বামী ও স্ত্রীর নামে, সংসার বিছিন্ন হতে না পারের দিকে লক্ষ্য রেখে। জাতীয় শোক দিবশে, জাতীয় চাঁদাবাজি বন্দ করার লক্ষে, তেহারী, বিরিয়ানি, খিজুড়ীর পরিবর্তে খাদ্য সামগ্রী বিতরনের নির্দেশে কোটি মানুষের খাদ্যভাব পুরণ হয়েছে। মজিব জন্মশতবার্ষিকীর সফলতা আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই আবিস্কার করতে পেরেছি মনে হয়। সারা বাংলাদেশে শোক দিবশের ভাবগাম্ভীর্যের পরিবর্তন এসেছে। প্রতিটি মানুষের হৃদয়ে শ্রদ্ধা প্রদর্শনের পরিবর্তন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা প্রদর্শনে শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে। এই বছর নেতাদের ফালাফালি, ছাত্রলীগ, যুবলীগের ধাক্কা ধাক্কি ছিলো না, বলতে পারেন। ৩২ নম্বর থেকে এক অবিস্মরণীয় অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। সারা বাংলাদেশ কথা বলতে পারবো না, তবে আমার দেখা ঢাকা ১৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ সাদেক খানের খাদ্য সামগ্রী বিতরন দেখে অভিভূত হয়েছি, মানুষের মনের আনন্দ উপভোগ্য করেছি। প্রতিটি থানা, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ শেখ হাসিনার নির্দেশিত পথে কোরআন তেলোয়াত, দোয়া মাহফিল ও খাদ্য সামগ্রী বিতরন ছিলো অভুতুপুর্ব। কিছু ধনোশালীরা এবং রাজনৈতিক দল এগিয়ে আসলে করোনার কান্তিকাল বাংলার মানুষ অনুভব করতেই পারতো না। মানব সেবার এই সুযোগ বার বার আসবে না। বাংলার ঘরে ঘরে, বাঙালির মনের দুয়ার খুলতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও শেখ হাসিনার বার বার আসবেন না। তাদের দেখানো পথ আমাদের মনের মাঝে সংরক্ষণ করতে পারলেই বাঙালি স্বাধীনতা, স্বাধীন মনকে কেউ আঘাত করতে পারবে না, ইনশাআল্লাহ।
লেখকঃ বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব ও রাজধানী মোহাম্মদপুর থানার ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব রবিউল আলম।
শেয়ার করুন
More News Of This Category

Dairy and pen distribution

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি ডটকম
themesba-lates1749691102