বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০১:৩৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ঝিনাইদহে ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক সাংবাদিক লাঞ্ছিত ও বেঁধে রাখার হুমকি।। ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে নিন্দা জানিয়ে অসংখ্য সাংবাদিক। কোরবানীর কাঁচা চামড়ার মুল্য নির্ধারণ, বানিজ্য মন্ত্রনালয়কে নিয়ে চলছে রং তামাশা শিক্ষক হত্যা ও জুতার মালা এখন বাঙালি জাতিকে বহন করতে হচ্ছে পদ্মা সেতু হয়ে টুঙ্গিপাড়া গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা শ্রদ্ধা মন খুলে দে,ও তুই হেলা করিস না, গোপালগঞ্জে যাবরে ভাই মোটরসাইকেল নিয়া ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে মান্নান হোসেন শাহীন সভাপতি, শেখ মোঃ জহিরুল ইসলাম অপু সাধারণ সম্পাদক ৩২ নং ওয়ার্ডে মোঃ বেলাল আহমেদ সভাপতি, মোঃ আবুল বাশার সাধারণ সম্পাদক ৩১ নং ওয়ার্ডে শহীদ আলী সভাপতি, সাজেদুল হক খান রনি সাধারণ সম্পাদক গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে শিগগিরই আর একটি গণঅভ্যুত্থান হবে: আমান উল্লাহ আমান

আগে আমাদের পরিবার সম্পর্কে জানুন, না জেনে মন্তব্য করবেন নাঃ আসিফ আহদে

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম শনিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১১২১ দেখা হয়েছে

মোঃ ইব্রাহিম হোসেনঃ ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সেনাপ্রধান জেনারেল ড. আজিজ আহমেদ এর ভাতিজা আসিফ আহমেদ, তার ফেসবুকে লিখছেন, আসসালামুআলাইকুম, আশা করি সবাই ভালো আছেন। বিগত কিছুদিন ধরে আমার পরিবার এবং আমাকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে নানান ধরনের খারাপ এবং ভালো খবর নিয়ে সারা দেশ এবং দেশের বাইরে কিছু মানুষ অনেক উৎসাহিত এবং কিছু মানুষ অনেক মর্মাহত। অনেক কাছের মানুষ ভয় পেয়ে দূরে চলে গেছে, অনেক মানুষ আড়ালে নানান কথা বলছে। আমি এবং আমরা পরিবার আওয়ামিলীগের কর্মী বলে এই রকম প্রথম না আগে অনেক বার হয়েছে। কিছু কথা সবার জেনে রাখা দরকার। আমাদের পরিবার যে পরিমান অত্যাচার সহ্য করেছি সারা বাংলাদেশে এমন অত্যাচার কোনো পরিবার করেছে কিনা আমার জানা নাই। আমাদের প্রত্যিক বাসায় যেই কতবার শত্রু পক্ষ হামলা করেছে বাংলাদেশে এতবার কোনো বাসায় করেছে কিনা আমার জানা নাই, আল্লাহের রহমতে আমাদের কারো কোনো শারীরিক ক্ষতি কেউ করতে পারেনি, আমাকে দেশের বাইরেও চলে যেতে হয়েছিল নিরাপর্তার কারনে এবং উচ্চ শিক্ষার কারনে, যখন আমার চাচা মরহুম সায়েদ আহমেদ টিপু কে মেরে ফেলা হলো। একটা সময় ছিল মানুষ শত্রুপক্ষের ভয়ের কারনে আমাদের সাথে দেখা হলে কথা বলতো না, আমাদের সাথে জোগাজক করতো না। আমি প্রায় বলি একটি কথা, একটি সময় এই ঢাকা শহরে আমার নিজের ছায়াও আমার সাথে থাকতো না। আমার বাবা দীর্ঘ ১৩ টা বছর মিথ্যে মামলার কারনে দেশের বাইরে ছিলেন, আমি ছিলাম মিতা ছায়া ছাড়া সন্তান, আমার বাবাকে যেই মিথ্যা মামলায় জড়ানো হয়রছিলো, যখন এই ঘটনাটি ঘটে তখন আমরা সবাই দুপুরের খাবার এক সাথে খাচ্ছিলাম (ওই দিন আমার স্কুল থেকে রেজাল্ট দিয়েছিল এবং আমি ক্লাসে প্রথম না হয়ে দ্বিতীয় হয়েছিলাম, আমাকে আব্বু অনেক বকা দিয়েছিল এখনও মনে পরে)। আজকে আমি আসিফ আহমেদ আপনাদের বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছি আপনাদের ভালোবাসা এবং বিশ্বাস অর্জনের মাধ্যমে। আমি আমার জীবনে এমন কোনো কাজ করি নাই যার জন্য মানুষ আমাকে খারাপ বলবেন।

একটা পরিবার যদি খারাপ হয় তাহলে তাদের সব সন্তানরা শিক্ষিত হতে পারে না। আমরা সরকার পরিবারের সব ভাই, বোনরা কেউ ব্যবসার সাথে রাজনীতি করছি, কেউ ব্যাংকে চাকরি করছি, কেউ ব্যরিস্টার এ পড়ছি, কেউ উনিভার্সিটির লেকচারার, কেউ আর্মিতে আছে, কেউ ডাক্তারি পড়ছে।

আগে আমাদের পরিবার সম্পর্কে জানুন

না জেনে মন্তব্য করবেন না।

শেয়ার করুন

এই ধরনের আরও খবর...

Dairy and pen distribution

themesba-lates1749691102